1. manobchitra@gmail.com : news :
  2. manobchitra24@gmail.com : News Bd : News Bd
June 19, 2024, 1:48 pm
শিরোনাম
বিশ্বের ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় আরও ১৪ ধাপ এগিয়েছে ঢাকা ফাঁকা ঢাকার সড়কে রেসিং করা হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: ডিএমপি কমিশনার মিয়ানমার সীমান্তে কঠোর নজরদারি করা হচ্ছে: ওবায়দুল কাদের সাতক্ষীরায় জেলা পরিষদের উদ্যোগে ১৭ লাখ টাকার অনুদানের চেক বিতরণ সাংবাদিককে লাঞ্ছিতকারী সাতক্ষীরা পৌরসভার সেই বিতর্কিত সিইও নাজিম উদ্দিনকে ভোলায় বদলী বিএনপি-জামায়াত আন্দোলনের নামে বৃক্ষনিধন করেছে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাতক্ষীরা জেলায় বিভিন্ন থানা আকস্মিক পরিদর্শন করলেন এসপি মুহাম্মদ মতিউর রহমান সিদ্দিকী পবিত্র ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও ব্যবসায়ী এ কে জসিম উদ্দিন পটুয়াখালীতে ভেসে আসা ডলফিনটিকে বঙ্গোপসাগরের মোহনায় অবমুক্ত করা হয়েছে একদিনে ৩ কোটি ২১ লাখ টাকার টোল আদায় হয়েছে বঙ্গবন্ধু সেতুতে

সাতক্ষীরা কলারোয়ার কামারালীতে ৩৫ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে তিন প্রতারক উধাও!

  • আপডেট সময় Sunday, January 9, 2022

সাতক্ষীরা কলারোয়া প্রতিনিধি (এম এ জামান): সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার কামারালী গ্রামের আব্দুস সোবহানের পুত্র আবু বাক্কার বাবু (৩৮), শহিদুলের পুত্র আব্দুল আলিম (৩৫) ও মোসলেম গাজীর পুত্র আব্দুল করিম (৩৬) কামারালী বাজারে পল্লী উন্নয়ন সঞ্চয় ঋণদান সমবায় সমিতি (কেপিইউএসএস) সমিতির নামে একটি সংগঠন খাড়া করেন।

একলক্ষ টাকায় এক বছরে ১৮হাজার টাকা লাভ দেওয়ার কথা বলে বিগত ১০ বছরে এলাকার শত শত সঞ্চয় দাতার নিকট থেকে প্রায় ৩৫কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে তারা উধাও হয়ে গেছে। কামারালী বাজারের প্রাধান কার্যলয় বন্ধ করে ২ সপ্তাহ আগে এলাকা ছেড়ে তারা উধাও হয়ে গেছে।

গ্রামের লোকজনের ধারণা বাক্কার (বাবু), আলিম ও করিম এই ৩ প্রতারক একসাথে দেশ ছেড়ে পালিয়ে বিদেশে পাড়ি দিয়েছে। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানের নামে খরিদ করা ২বিঘা জমি কামারালী গ্রামের কয়েকজন পাওনাদার দখল করে নিয়েছে। বেশি লাভের আশায় বিদেশে কর্মরত প্রবাসীরা লক্ষ লক্ষ টাকা বাবুর প্রতিষ্ঠানে জমা করেছে।

প্রতিষ্ঠান প্রধান আবু বাক্কার বাবু ০১৭৩৯৯২৪৭৭৪ এই নাম্বর থেকে ফোন করে ৩০ জানুয়ারির মধ্যে পাওনাদারদের টাকা পরিশোধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। বর্তমানে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে কামারালী গ্রামের তাহেরালী গাজীর পুত্র মোসলেম ১৮ লক্ষ, ইছারুদ্দীন সানার পুত্র মাও: গোলাম রসুল ২০ লক্ষ, ইসমাইলের পুত্র কামরুল ৬ লক্ষ, লুকমান মোড়লের সাহাজুল ও মফিজুলের ৪০লক্ষ টাকাসহ দিনমজুর, ভ্যানচালক, কৃষক-শ্রমিক ব্যবসায়ী ও প্রবাসীদের জমানো লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় প্রায় ৮ শত সদস্য এখন দিশেহারা। টাকা ফিরে না আসা পর্যন্ত পাওনাদাররা দুশ্চিন্তায় আছে। গ্রামের পাওনাদাররা আলিম, বাক্কার ও করিমের পরিবারের প্রতি চাপ দিতে বাধ্য হচ্ছেন।

এব্যাপারে এলাকার হতদরিদ্র মানুষ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2021 ManobChitra
Theme Customized By BreakingNews